নিশো-মেহজাবীনের ‘ঋণী’

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৫৩২ দেখেছেন

রাজীব হাসানের গল্পে মিজানুর রহমান আরিয়ান নির্মাণ করেছেন নাটক ‘ঋণী’। এতে জুটি বেঁধেছেন আফরান নিশো ও মেহজাবীন চৌধুরী।

জনপ্রিয় এ দুই অভিনয়শিল্পীকে সায়েদ ও রিনি  চরিত্রে ‘ঋণী’তে দেখতে পাবেন দর্শক। এখানে আরো অভিনয় করেছেন  রাশেদা চৌধুরী, শিল্পী সরকার অপু, ওমর আয়াজ অনি প্রমুখ।

‘ঋণী’ সম্পর্কে মেহজাবীন চৌধুরী বলেন, ‘স্নিগ্ধ একটা গল্প। ক্যামেরার কাজ ও নির্মাণশৈলীও চমৎকার হয়েছে।

অন্যদিকে, নির্মাতা মিজানুর রহমান আরিয়ান জানান, নাটকটি বানানোর অভিজ্ঞতা তাঁর ভালো ছিল। তিনি বলেন, “এই নাটকে যতটা না গল্প আছে, তার চেয়ে বেশি একটা ‘বউ’ আছে। এটা কেন বললাম, সেটা এখন বলতে চাই না। যাঁরা নাটকটি দেখবেন, তাঁরা ভালো বুঝতে পারবেন সেটা।”

নাটকটি আজ রাত ৮টায় আরটিভিতে প্রচারিত হবে। ‘ঋণী’র গল্পে দেখা যাবে,  রিনি সম্ভ্রান্ত পরিবারের মেয়ে হলেও ভালোবাসে মধ্যবিত্ত পরিবারের ছেলে সায়েদকে। সায়েদ রিনিকে অনেকবার বোঝানোর চেষ্টা করেছে তাদের এই ভালোবাসার শেষ পরিণতি সুখের হবে না। কিন্তু রিনি তার ভালোবাসাকে নিজের করে পাওয়ার জন্য সায়েদকে এবং সায়েদের পরিবারকে নিজের করে নিয়েছে। অন্যদিকে, রিনির বাবা রিনির জন্য বিয়ে ঠিক করেন তারই বন্ধু আসিফের ছেলের সঙ্গে।

রিনি তার ভালোবাসার মানুষকে পেতে বাড়ি থেকে পালিয়ে বিয়ে করে সায়েদকে। বিয়ের কয়েক মাস পর সায়েদের চাকরি চলে গেলে তাদের সুখের সংসার অনেকটা কমে দাঁড়ায়। এরপর ঘটনা মোড়  নেয় অন্যদিকে। শুরু হয় অন্য আরেক গল্প।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ