স্টেইনের কীর্তির ম্যাচে বিপর্যস্ত পাকিস্তান!

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : বুধবার, ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
  • ৪৩৬ দেখেছেন

রেকর্ডটি দীর্ঘদিন ধরে দখলে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক পেসার শন পোলকের। দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে বেশি ৪২১ উইকেটের মালিক ছিলেন তিনি। ২০০৮ সালে অবসর নেওয়া পোলককে এবার ছাড়িয়ে গেছেন ডেল স্টেইন। সেঞ্চুরিয়ানে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টের প্রথম দিনে ওপেনার ফখর জামানকে সাজঘরে ফিরিয়ে এককভাবে শীর্ষ স্থান দখল করে নিলেন স্টেইন।

৮৯ টেস্ট খেলে এই কীর্তি গড়েন স্টেইন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এই ম্যাচে এক উইকেট নিয়ে মোট ঝুলিতে ৪২২ উইকেট। টেস্টে প্রোটিয়াদের হয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট শিকারি এখন তিনিই।

অবশ্য শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আগের সিরিজে এই গড়ে ফেলতে পারতেন তিনি। তবে দুই টেস্টের সেই সিরিজে মাত্র দুই উইকেট শিকার করে পোলকের রেকর্ড স্পর্শ করেন তিনি।

টেস্ট ক্রিকেটে সর্বকালের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারির তালিকায় স্টেইন বর্তমানে ১১তম স্থানে আছেন। সর্বোচ্চ ৮০০ উইকেট নিয়ে সবার ওপরে আছেন শ্রীলঙ্কান কিংবদন্তি স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন। পেসারদের মধ্যে এ তালিকার শীর্ষে আছেন ইংল্যান্ডের জেমস এন্ডারসন। তাঁর শিকার ৫৬৫।

এই ম্যাচে সফরকারী পাকিস্তান খুব একটা সুবিধা করতে পারছে না। শতক পার হওয়ার আগেই ছয় উইকেট হারিয়ে বসে তারা। তরুণ পেসার ডুয়ানে অলিভার একাই নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ৩৪ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ১০৫ রান তুলেছে পাকিস্তান।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ