প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা পেলেন বাকি ১০ নারী ফুটবলার

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারী, ২০১৯
  • ২৬৯ দেখেছেন

গেল বছর অক্টোবরে ভুটানে সাফ অনূর্ধ্ব-১৮ চ্যাম্পিয়নশিপে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় বাংলাদেশ। তার আগের মাসে ঘরের মাঠে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ চ্যাম্পিয়নশিপ বাছাইপর্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয় মারিয়া, তহুরারা।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে ডেকে নিয়ে চ্যাম্পিয়ন দলকে সংবর্ধনা দেন। প্রত্যেকের হাতে তুলে দেন ১০ লাখ টাকার চেক।

অনূর্ধ্ব-১৬ দলে বেশ কয়েকজন সদস্য ছিলেন, যারা পরে অনূর্ধ্ব-১৮তেও খেলেছেন। ওই সময় শুধু অনূর্ধ্ব-১৬ দলকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনূর্ধ্ব-১৮ দলের ১০ ফুটবলারকে তখন সংবর্ধনা দেয়া হয়নি। সেই ১০ জনকে বৃহস্পতিবার গণভবনে ডেকে প্রত্যেকের হাতে ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

১০ ফুটবলার হলেন- রুকসানা বেগম, মাশুরা পারভীন, শিউলি আজিম, মিশরাত জাহান মেৌসুমি, মার্জিয়া, ইসরাত জাহান রত্না, সানজিদা আক্তার, মোসাম্মাত স্বপ্না, কৃষ্ঞা রানী সরকার এবং রাজিয়া খাতুন।

এ সময় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন এবং সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ এমপি উপস্থিত ছিলেন

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ