ভোলা জেলার সামাজিক সংগঠন ব-দ্বীপ ফোরামের কেন্দ্রীয় পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০১৯
  • ৪২৯ দেখেছেন

 

ছবিঃ হোটেল গোল্ডেন চিমনির সামনে ব-দ্বীপ ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বৃন্দু

সাউথ বাংলা টিভি, ষ্টাফ রিপোর্টার ।।

ভোলা জেলার সামাজিক সংগঠন ব-দ্বীপ ফোরামের আগামী এক বছরের জন্য ২১ সদস্য বিশিষ্ট কেন্দ্রীয়  পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। আজ ২৫ জানুয়ারী শুক্রবার রাজধানীর বাংলামঠরে হোটেল গোল্ডেন চিমনিতে কুরাআন তিলওয়াতের মধ্যে দিয়ে সংগঠনের বার্ষিক সম্মেলন আনুষ্টিত হয়। সম্মেলনের  শুরুতে কুরআন তিলাওয়াত করেন  তানজিল সানি। এ সময় আহ্বায়ক কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক পুর্ব কমিটি বিলুপ্ত ঘোষনা করে নতুন উপনির্বাচনী কমিটি গঠন করে এ কমিটি গঠন করা হয়।

এতে আগামী ১ বছরের জন্য জিলন রহমান সভাপতি এবং মহিউদ্দিন পলাশ কে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি  পূর্ণাঙ্গ গঠন করা হয়।

সভাপতিঃ জিলন রহমান

ছবিঃ সাধারন সম্পাদক মহিউদ্দিন পলাশ

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন সিনিয়র সহ-সভাপতি ইন্জিঃ হুমায়ুন ,সহ-সভাপতি মিজানুর রহমান মহিউদ্দিন  যুগ্ম সাধারণ সাধারণ সম্পাদক মো. হোসেন ফিলিবস, যুগ্ম সাধারণ সাধারণ সম্পাদক আব বকর সিদ্দিকী রাসেল

এছাড়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফুয়াদ আল হাসান, সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবুল বাশার, সহ- সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল আলম রাশেদ, কোষাধক্ষ্য মীর মোশাররাফ অমি, দপ্তর সম্পাদক মো. রিয়াজ উদ্দিন,  প্রচার সাধারণ সম্পাদক হোসনা মোবারক সৌরভ, সমাজ কল্যান সম্পাদক অভি নিরব, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক কেয় চৌধুরী, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আমির হাসান মাসুদ, প্রকাশনা  সম্পাদক গৌতম পাল, সহ- প্রকাশনা  সম্পাদক আমিনুল আরমান ইফতি, আইটি বিষয়ক সম্পাদক বায়েজিদ খান,ও

সদস্য তানজিল সানি, সদস্য শিহাব উদ্দিন হাওলাদার, সদস্য মহমুদুল হাসান রিয়াজ, নির্বাচিত হন।

 

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ