ভোলায় অসহায়দের মাঝে প্রশিক্ষিত যুব সংঘ (প্রযুস) এর শীতবস্ত্র বিতরণ।

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৯
  • ২৯৩ দেখেছেন

আমরাও ভালোভাবে বাঁচতে চাই, আমরাও এই কনকনে শীতে শান্তিতে ঘুমাতে চাই এই শ্লোগানে সামানে রেখে ভোলার সুপরিচিত সামাজিক সংগঠন প্রশিক্ষিত যুব সংঘ (প্রযুস) এর পক্ষ থেকে হতদরিদ্র ও দুস্থ শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে।বৃহস্পতিবার (৭ ফেব্রুয়ারী) সন্ধ্যায় সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়নের নবীপুর থেকে শুরু করে নাছির মাঝি বেড়িবাঁধা এলাকা,কোরার হাট,সুইচ গেট বেড়িবাঁধ এলাকা,পরীর হাটসহ ধনিয়া ইউনিয়নের উল্লেখযোগ্য স্থানে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন,প্রশিক্ষিত যুব সংঘ (প্রযুস) আহ্বায়ক হেলাল উদ্দিন মাষ্টার,সদস্য সচিব মোঃআরিয়ান আরিফ,প্রতিষ্ঠাতা মোঃ ইসমাইল হোসেন,অর্থ সম্পাদক রাকিবুল আলম ,সক্রিয় সদস্য রাকিবুলহাসান,কামরুল ইসলাম শুভ,সিনিয়ার সদস্য মোঃইউছুব সোহেল, মোঃ নূরনবী,মোঃ ফারুক, মোঃ রাকিব হোসেন,মোঃনয়ন,মোঃফারুক,মোঃখাইরুল মোঃ হোসেন,আনোয়ার হোসেন,মোঃতারেক প্রমূখ। শীত বস্ত্র বিতরণ শেষে সমাজের অন্যান্য সকল সামাজিক সংগঠন এবং বিত্তবানদের কে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য উদাত্ত্ব আহবান জানানো হয়।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ