আমি মোদির মতো বাথরুম উদ্বোধন করতে যাই না: মমতা

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ৭ মার্চ, ২০১৯
  • ২৫২ দেখেছেন

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সমালোচনা করে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বলেছেন, আমি মোদির মতো বাথরুম উদ্বোধন করতে যাই না।

বুধবার বেশকয়েকটি সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন ও নামফলক কর্মসূচিতে সাঁতরাগাছির আড়ুপাড়ায় গিয়ে মমতা এসব কথা বলেন।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কাজের চেয়ে বেশি নিজের বিজ্ঞাপন প্রচার করেন বলেও অভিযোগ করেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মমতা বলেন, একসঙ্গে সরকারি প্রকল্পের উদ্বোধন করে দিলেই তো হয়। আমি মোদির মতো বাথরুম উদ্বোধন করতে যাই না। এত পাবলিসিটি কেন?

এ দিনের অনুষ্ঠান থেকে একাধিক প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মমতা। এ দিন ৩০টি হেলিপ্যাডসহ একাধিক প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

সেই সঙ্গে জানান, নবান্নের পেছনে নতুন করে তৈরি হবে স্বাস্থ্যভবন। এর জন্য তিন একর জায়গা ইতিমধ্যেই চিহ্নিত করে ফেলেছে সরকার।

এ দিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, নোটবন্দির পর দেশে দু’কোটি ছেলেমেয়ে কাজ হারিয়েছে। বাংলায় সেখানে ৪০ শতাংশ কর্মসংস্থান বেড়েছে। কর্মসংস্থান তৈরিতে বাংলা দেশের মধ্যে সেরা। এরপরই কেন্দ্রের দিকে খোঁচা দিয়ে মমতার প্রশ্ন, কাজ করলে প্রচারের কী দরকার?

পুলওয়ামা ঘটনা নিয়ে এ দিনও বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগের সুরে বলেন, জওয়ানদের রক্ত নিয়ে রাজনীতি হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর আরও অভিযোগ, গুগলে গিয়ে সার্চ করে আমার ধর্ম দেখছে। আমার ধর্ম মানবতা। মানবতা জানো? আমি দাঙ্গা করতে দেব না। কিছুতেই না।

নোটবন্দির প্রসঙ্গ টেনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমিই প্রথম বলেছিলাম নোটবন্দি খারাপ। বলেছিল বিদেশে থাকা টাকা দেশে ফেরাবে। আর নোটবন্দি করে দেশের টাকা বাইরে পাঠিয়ে দিয়েছে। সরকারি সভা হলেও, এ দিনও নরেন্দ্র মোদি এবং বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মমতা।

আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে ঘোষণা করেন, মোদিবাবু আর অমিত শাহবাবুর সাইনবোর্ড উঠিয়ে দেবই।

তবে বাথরুম উদ্বোধন নিয়ে মোদির বিরুদ্ধে মমতার মন্তব্য নিয়ে পাল্টা জবাব দিয়েছে বিজেপিও। গেরুয়া শিবিরের বাংলার এক শীর্ষ নেতার কথায়, আপনারা কেউ দেখেছেন মোদি কোথাও বাথরুম উদ্বোধন করতে গিয়েছেন? কিন্তু বাংলার রাস্তাঘাটে যে কোনও বাথরুমেও এ রাজ্যের মানুষ মমতার অনুপ্রেরণা দেখতে পান।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ