সিরিয়ায় মার্কিন জোটের হামলায় ১৬০০ বেসামরিক নিহত

নিজস্ব প্রতিবেধক
  • প্রকাশিত : শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল, ২০১৯
  • ২০৯ দেখেছেন

সিরিয়ার রাক্কায় মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোটের বিমান হামলা ও স্থল অভিযানে এখন পর্যন্ত অন্তত এক হাজার ৬০০ জন বেসামরিক মানুষ নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

ব্রিটিশ মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল ও পর্যবেক্ষণ সংস্থা এয়ারওয়াস প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সংস্থাগুলো জানায়, তারা তদন্তের মাধ্যমে ২০০ স্থানে বিমান হামলা এবং এক হাজার নিহতের পরিচয় জানতে পেরেছে।

২০১১ সালে রাক্কাকে রাজধানী ঘোষণার পর সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের বিরুদ্ধে ‘জিহাদ’ শুরু করে আইএস।

গোষ্ঠীটির নতুন নামকরণ করা হয় ইসলামিক স্টেট অব ইরাক অ্যান্ড দি লেভান্ট (সিরিয়া)। একসময় ইরাক-সিরিয়ার ৮৮ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয় জঙ্গিগোষ্ঠীটি। তাদের খেলাফতের অধীন হয়ে পড়ে প্রায় এক কোটি মানুষ।

তবে মার্কিন ও রুশ বাহিনীর বিমান হামলার পাশাপাশি ইরাক এবং সিরিয়ায় বিভিন্ন বাহিনী প্রতিরোধ গড়ে তোলে। এতে খেলাফত সংকুচিত হয়ে তারা সিরিয়ার ইউফ্রেটিস নদীর এক বাঁকে সীমাবদ্ধ হয়ে পড়ে।

এর মাঝেই মার্কিন বিমান হামলায় বিপুলসংখ্যক বেসামরিক নিহত হয়েছেন বলে জানায় সংস্থা দুটি।

তবে মার্কিন জোটের দাবি, এই অভিযানে হতাহতের সংখ্যা মাত্র ১৮০ জন। তাদের দাবি, তারা বেসামরিকদের সুরক্ষার ব্যাপারে যথেষ্ট সচেতন।

শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় একজন প্রতিমন্ত্রী দুঃখ প্রকাশ করেছেন।

বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

সড়কে শৃঙ্খলা ফেরানো নিয়ে কথা বলার সময় সম্প্রতি জুনাইদ আহমেদ পলকের মাথায় হেলমেট ছাড়া বাইকে চড়ে সচিবালয়ে যাওয়ার ঘটনা উল্লেখ করে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরকে প্রশ্ন করেন।

তিনি বলেন, ওই প্রতিমন্ত্রী সড়কে হেলমেট ছাড়া মোটরসাইকেলে যাত্রী হওয়ার ঘটনায় আমার কাছে ভুল স্বীকার করেছেন।

‘তাকে আমি এ বিষয়ে জিজ্ঞেস করেছিলাম। পরে তিনি এ ঘটনায় ভুল বুঝতে পেরে দুঃখ প্রকাশের পাশাপাশি ভবিষ্যতে এমন ঘটনা ঘটবে না বলে আমাকে কথা দিয়েছেন।’

নতুন সরকারে শপথ নেয়ার পর দিন মঙ্গলবার দুপুরে আগারগাঁওয়ের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগে দ্রুত যেতে পলক মোটরবাইকে সওয়ার হয়েছিলেন।

মোটরবাইকে চেপে অফিসযাত্রার ছবি নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের টাইমলাইনেও পোস্ট করেন পলক। তাতে তাকে হেলমেট ছাড়া অবস্থায় দেখে সমালোচনা করেন অনেকে।

আইনপ্রণেতা হিসেবে হেলমেট না পড়ে মোটরযান আইন ভাঙায় ফেসবুকে পলকের পোস্টেই সমালোচনা করেন অনেকে।

এ প্রসঙ্গে পলক পরে সাংবাদিকদের বলেন, তাড়াহুড়ো করে যাওয়ার জন্য আমি যে বাইকের সাহায্য নিয়েছি, তার কাছে কোনো বাড়তি হেলমেট ছিল না। আর ওটা রাইড শেয়ারিংয়ের বাইকও ছিল না, ব্যক্তিগত বাইক ছিল।

হেলমেট ছাড়া বাইকে সওয়ার, পলকের দুঃখ প্রকাশ